ডিপ্লোমা/পলিটেকনিক ফলাফল পুণঃনিরীক্ষণের নিয়ম



বাংলাদেশ কারিগরী শিক্ষাবোর্ডের অধীনে চার বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং এ প্রতি সেমিস্টারের ফলাফল প্রকাশিত হবার পর পুনর্বিবেচনার জন্য আবেদন করা যায়। সাধারণত ফলাফল প্রকাশের পরদিন থেকে ৭-১০ দিন সময় থাকে আবেদন করার। আগে এই সম্পর্কিত নোটিশ ওয়েবসাইটে দিতে দেখা গেলেও বর্তমানে এই নোটিশ ওয়েবসাইটে দেয়া হয় না, ফলে শেষ সময় কবে তা কেবল কারিগরী বোর্ডে গেলেই দেয়ালে লাগানো নোটিশ থেকে দেখা যায়। অন্য কোথাও দেয়া হয় কিনা সেটা অবশ্য জানা নেই আমার, কেউ জেনে থাকলে কমেন্টে দেয়ার অনুরোধ রইলো।

যাই হোক, এই আর্টিকেলের উদ্দেশ্য হল ফলাফল পুনর্বিবেচনার আবেদন করার সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানানো। বাস্তব অভিজ্ঞতা নিয়েই আর্টিকেলটি লিখছি সব ইনফরমেশন সঠিকভাবে দেয়ার জন্য।

কি কি লাগবে ?

১। প্রবেশপত্রের ফটোকপি (যে পরীক্ষার রেজাল্ট এর জন্য আবেদন করছেন সেই প্রবেশপত্র )

২। লিখিত বা কম্পিউটারে কম্পোজকৃত আবেদনপত্র (ডাউনলোড করুন এখান থেকে)

৩। প্রকাশিত রেজাল্ট এর একটি প্রিন্টেড কপি, যে পেজে আপনার রোল আছে শুধুমাত্র ঐ পেজ প্রিন্ট করে আপনার নিজের রোলের অংশটুকু মার্ক করে দিন কলম দিয়ে।

কিভাবে করতে হবে ?

১। উপরোক্ত সবগুলো ডকুমেন্টস রেডি করে একসাথে স্ট্যাপলার করে নিন, যদিও অনেক ক্ষেত্রে এসব ডকুমেন্টের ২ সেট করতে বলা হয়, তবে এক সেট হলেও সমস্যা হয় না। তবে ঝামেলা এড়ানোর জন্য ২ সেট করে নিতে পারেন।

২। এবার এসব ডকুমেন্ট আপনার ডিপার্টমেন্ট এর চিফ ইন্সট্রাক্টরের কাছে নিয়ে সুপারিশ নিয়ে নিন। উনি স্বাক্ষর করে দেবেন আবেদন পত্রে।

৩। তারপর আপনার প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষের কাছ থেকে স্বাক্ষর নিতে হবে। ঢাকা পলিটেকনিকের ক্ষেত্রে সরাসরি প্রিন্সিপাল স্যারকে না পেলেও, নীচতলায়  রেজিস্ট্রার এর পাশের রুমে জমা দিলেই উনি স্বাক্ষর করিয়ে এনে দিবেন।

 

এবার ক্যাম্পাসে আপনার কাজ শেষ, পরবর্তী কাজ কারিগরী বোর্ডে গিয়ে করতে হবে।

 

৪। স্বাক্ষর নেয়া হয়ে গেলে আবেদনপত্র নিয়ে চলে যান আগারগাও এ বাংলাদেশ কারিগরী শিক্ষাবোর্ডের অফিসে। আইডিবি ভবনের পাশের রাস্তা দিয়ে ৫ মিনিট হাটলেই হাতের বামপাশে কারিগরী শিক্ষাবোর্ডের অফিস।

৫। সেখানে গিয়ে প্রথমেই একটি টাকা জমা দেয়ার রশিদ সংগ্রহ করতে হবে। সম্ভবত ১১৫ নাম্বার রুমে বা অনেক সময় বাইরে কোন এক জায়গা থেকেই দেয় এই ফর্ম। সেখানে গেলেই খুজে নিতে পারবেন।

৬। রশিদ নেয়ার পর ঐ রশিদ এ আপনার ইনফরমেশন দিয়ে পুরন করুন আর চলে যান SIBL ব্যাংকে। আইডিবি ভবনের ঠিক পাশেই SIBL এর ব্রাঞ্চ, সেই ব্রাঞ্চেই টাকা জমা দেবেন। প্রতি বিষয়ের জন্য ৩০০ টাকা, অর্থাৎ আপনার যদি ৩ বিষয় হয় তবে টাকার অংক হবে ৯০০ টাকা।

৭। সেখানে টাকা জমা দিয়ে রশীদের যে অংশ আপনাকে ফেরত দিবে সে অংশ আবেদনপত্রের সাথে যুক্ত করে আবার কারিগরী বোর্ডে চলে যান। সেখানে গিয়ে খুজে নিন কোথায় জমা নিচ্ছে আবেদন। লাইনে দাঁড়িয়ে সুশৃংখল ভাবে জমা দিন। আবেদন পত্র রেখে রশিদের একটা অংশ আপনাকে দিয়ে দেয়া হবে।

৮। সেই অংশ নিয়ে এবার বাড়ি ফিরে যান, আপনার কাজ শেষ 😀

৯। পরবর্তীতে রেজাল্ট পাবলিশ হলে চেক করুন কোন পরিবর্তন হলো কিনা।

এ সম্পর্কিত কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্টে করতে পারেন, ধন্যবাদ।

Author

আবদুল আউয়াল উজ্জ্বল

আবদুল আউয়াল উজ্জ্বল

Student of Dhaka Polytechnic Institute and Professional Web Developer.

Find me on:

Leave a Reply

Your email address will not be published. aria-required='true'

 

Copyright © 2015 DiplomaZone.net