রেফার্ড/রিএডমিশনের ইতিবৃত্ত



পলিটেকনিক স্টুডেন্টদের অনেকেই সঠিক নিয়ম সম্পর্কে অবগত নয়। কয়টা বিষয় অকৃতকার্য হলে রেফার্ড দিতে হবে আর কয়টা হলে রিএডমিশন এটা নিয়ে অধিকাংশ শিক্ষার্থীই কনফিউজড থাকে। কয়েকদিন আগেও যখন সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষার রেজাল্ট পাবলিশ হল তখন একজনের ২ সেমিস্টার মিলিয়ে ৬ বিষয় রেফার্ড আসলো, সে তো দুশ্চিন্তায় পড়ে গেলো যে তার রিএডমিশন নিতে হবে, এর সাথে আবার তার ব্যাচের কয়েকজনও কনফার্ম করে দিলো যে তার রিএডমিশন নিতে হবে! পরবর্তীতে সে আমাকে জিজ্ঞেস করার পর বিষয়টা ক্লিয়ার করে দিলাম। এ ধরনের পরিস্থিতিতে অনেককেই পড়তে হতে পারে আর তার জন্যই আর্টিকেলটি লিখছি।

২০১০ প্রবিধান অনুযায়ী যদি কোন এক সেমিস্টারে ৪ বা তার বেশি বিষয়ে রেফার্ড আসে তবেই রিএডমিশন হবে। তবে যদি কোন বিষয়ের ব্যবহারিক অংশে অকৃতকার্য আসে, তাহলে রিএডমিশন হবে। অর্থাৎ থিওরি তে সর্বোচ্চ ৩ টা পর্যন্ত রেফার্ড থাকতে পারবে কিন্তু প্র্যাক্টিকাল এ একটাও না।

এখন ধরা যাক আপনার চতুর্থ সেমিস্টারে ৩ টা বিষয়, ৫ম সেমিস্টারে ৩ টা বিষয়, ৬ষ্ঠ সেমিস্টারে ৩ টা বিষয় মোট ৯ টা বিষয়ে রেফার্ড আসলো। তাহলে কি রিএডমিশন হবে ?

উত্তর হল না। আপনি ঐ ৯ টা বিষয়ই পরবর্তী সেমিস্টার ফাইনালের সাথে পরীপুরক হিসেবে দিতে পারবেন।

আরেকটি প্রশ্ন আসে অনেক ক্ষেত্রেই, ধরুন আপনি কয়েকটা বিষয় একবার পরিপূরক পরীক্ষা দিয়ে পাস করতে পারলেন না, তাহলে কি হবে ? তাহলেও সমস্যা নেই, পরবর্তীতে আবার সেই বিষয়গুলো দিতে পারবেন। পাস করার আগ পর্যন্ত দিতে থাকবেন 😉

এর বাইরে অন্য কোন প্রশ্ন থাকলে অবশ্যই কমেন্ট বা প্রশ্ন করুন ফিচারের মাধ্যমে করবেন, চেষ্টা করবো উত্তর দিয়ে সহায়তা করার জন্য।

ধন্যবাদ।

Author

আবদুল আউয়াল উজ্জ্বল

আবদুল আউয়াল উজ্জ্বল

Student of Dhaka Polytechnic Institute and Professional Web Developer.

Find me on:

Leave a Reply

Your email address will not be published. aria-required='true'

 

Copyright © 2015 DiplomaZone.net