বিষয়ঃ ট্রান্সফার (এক পলিটেকনিক থেকে অন্য পলিটেকনিকে স্থানান্তর)



বিষয়ঃ ট্রান্সফার (এক পলিটেকনিক থেকে অন্য পলিটেকনিকে স্থানান্তর)

আমার এক ছোট ভাই আমাকে কয়েকদিন আগে ট্রান্সফারের ব্যপারে জিজ্ঞেস করে। সঠিক তথ্য না থাকায় তাকে এ ব্যাপারে কোনো তথ্যই দিতে পারি নি। আজকে ওকে জানালাম ট্রান্সফারের ব্যাপারে। ট্রান্সফারের ব্যাপারটি যেহেতু জরুরি তাই সবার জন্য এই সংক্ষিপ্ত তথ্য সমবৃদ্ধ আর্টিকেলটি লিখলাম। আশা করি সবাই উপকৃত হবে।
জেনে নেওয়া ভাল- ট্রান্সফারের যোগ্যতাঃ

১. বিগত সেমিস্টার গুলোতে সিজিপিএ ৩.০০ এর উপরে রাখা।( এর কম সিজিপিএ হলেও আবেদন করতে পারবে তবে অগ্রাধিকার পাবে না)

২. কোনো অফিসিয়াল কমপ্ল্যান বা অভিযোগ না থাকা। ট্রন্সাফার আবেদন করবার সময়ঃ ১. সেমিস্টার বা পর্ব পরিক্ষার পর ট্রান্সফার ফিঃ ২০০ টাকা (বর্তমানে পরিবর্তন হতে পারে)

ধর, তুমি কুমিল্লা পলিটেকনিকে (CPI) সিভিলে (Civil) পড়, ঢাকা পলিটেকনিকে (DPI) ট্রান্সফার হতে চাও। এখন তোমার ট্রান্সফার হওয়ার জন্য করণীয় ধাপসমূহঃ

১. CPI এর সিভিলের CI কে জানাতে হবে।

২. CI ই বলে দিবে কিভাবে আবেদন করতে হবে।

৩. আবেদনটি সঠিকভাবে লিখতে হবে ও তারপর ওই আবেদনে ট্রান্সফারের জন্য CI এর সুপারিশ ও সই নিতে হবে।

৪. এরপর তোমাকে DPI এর সিভিলের CI বরাবর ট্রান্সফারের আবেদনটি জমা দিতে হবে।

৫. জমা দেওয়া হলেই একটি তারিখ দিবে বা নোটিশে জানিয়ে দেয়া হবে ভাইভার জন্য।

৬. পরিক্ষার রেজাল্ট হওয়ার পর CPI থেকে সকল কাগজপত্র তুলে নিতে হবে।

৭. কাগজপত্রগুলো ভাইভার দিন সঙ্গে করে নিতে হবে।

৮. ভাইভা শেষ হলে কাগজপত্রগুলো জমা নিয়ে নিবে।

৯. এর মাঝেই DPI এর রেজিস্টারের কাছে ২০০ টাকা জমা দিয়ে রশিদ নিতে হবে।

১০. আলহামদুলিল্লাহ বল বা সৃষ্টিকর্তার শুক্রিয়া আদায় করো, তুমি সফলভাবে ট্রান্সফার হতে পেরেছ।

————————————————————————-
তথ্যগুলো পূর্বে HDDEB গ্রুপে প্রকাশিত
পোষ্ট লিঙ্ক- https://goo.gl/AWY6eJ –
গ্রুপ লিঙ্ক- https://www.facebook.com/groups/hddeb/

Author

S.M. Fazla Rabbi

S.M. Fazla Rabbi

Find me on:

Leave a Reply

Your email address will not be published. aria-required='true'

 

Copyright © 2015 DiplomaZone.net