ইন্টার্নি প্রক্রিয়ার খুটিনাটি



আমরা প্রথম প্রথম অনেকই বুঝতে পারি না কি করতে হবে, কিভাবে করতে হবে–যখন আমাদের পলিটেকনিক গুলোতে ইন্টার্নির নোটিশ আসে। এই বড় ভাই, সেই বড় ভাই-আপুদের কাছে ছোটাছুটি করি–আসলে কি করবো বুঝতে পারি না। স্যারদের কিছু জিজ্ঞেস করলে সঠিক বা নির্দিষ্ট কিছু তথ্যও পাওয়া যায় না। তাই আজকের লেখা—আগামীতে যারা ইন্টার্নিতে যাবে এবং বর্তমানে যারা ইন্টার্নিতে আছো তাদের জন্য।

ইন্টার্নির ধাপঃ
১. ইন্টার্নির প্রথম ধাপ হলো আপনি কি নিয়ে ক্যারিয়ার গড়তে চান তা ডিসাইড করা বা যদি আগে থেকেই ডিসাইড করে থাকেন কোনটাকে প্রফেশন হিসেবে বেছে নেবেন, তবে সেটাকে আরেকবার স্মরণ করুন এবং বর্তমান চাকরি ও ব্যবসার বাজারে বিবেচনা করুন।
২. ধরুন আপনি ওয়েব ডেভেলপার হবেন তাহলে আপনি দেশের সেরা কয়েকটা ওয়েব ডেভেলপার কোম্পানির তালিকা তৈরী করে মিড পজিশন গুলোর মধ্যে নামকরা একটা প্রতিষ্ঠানকে সিলেক্ট করুন।
৩. এরপর ওই প্রতিষ্ঠানে আত্বীয় স্বজন দ্বারা বা নিজে যোগাযোগ করে যেনে নিন, ইন্টার্নি করার সুযোগ আছে কিনা।
৪. সুযোগ থাকা সাপেক্ষে বা ইন্টার্নি করার জন্য এবার অনুমতিপত্র বা অফার লেটার আপনার পলিটেকনিক থেকে লিখে নির্ধারিত কর্তৃপক্ষের সাক্ষর ও সিল যুক্ত করে নিজ হাতে আবেদন পত্রটি আপনার কাংখিত ইন্টার্নি ইচ্ছু প্রতিষ্ঠানে জমা দিন। অবশ্যই আবেদনের সঙ্গে সিভি যুক্ত করবেন। সরকারী প্রতিষ্ঠান হলে সিম্পল সিভি দেবেন, আর বেসরকারী প্রতিষ্ঠান হলে সিভি অনেক সুন্দর করে সাজাবেন।
৫. তারা ইন্টার্নির শুরুর পূর্বে ইন্টারভিউ নিতে পারে। সেক্ষেত্রে আপনার কাজের বিষয়ভিত্তিক বেসিক পড়াশুনা করবেন, যাতে তিনটা প্রশ্ন করলে অন্ততপক্ষে দুটি প্রশ্নের উত্তর সঠিকভাবে দিতে পারেন। প্রশ্ন না পারলে, ” দুখিত স্যার স্মরণ করতে পারছি না” -বলে স্কিপ করে যাবেন। কখনোই ”জানি না, পারি না, বা ভুল উত্তর দেবেন না। “
#নিচের লিংকে অফার লেটার এর  নমুনা সহ সরকারী প্রতিষ্ঠানে ইন্টার্র্নির বিষয়াদি বলা আছে-
http://diplomazone.net/%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%9F%E0%A6%BF%E0%A6%B8%E0%A6%BF%E0%A6%8F%E0%A6%B2-%E0%A6%8F-%E0%A6%87%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%9F%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%8D%E0%A6%A8%E0%A6%BF/

ইন্টার্নিতে কি করতে হবেঃ
১. সব সময় ফরমাল ড্রেস ( অফিস টি-শার্ট,  প্রিণ্ট ফুলহাতা/হাফহাতা শার্ট, কালো বানানো বা গেভাডিন প্যান্ট, শু জুতো) পড়বেন। হাতে ঘড়ি পড়বার অভ্যেস রাখবেন। চুল ছেটে রাখবেন। ভালো পারফিউম ব্যবহার করবেন ।
২. সব সময় নির্ধারিত সময়ের আগে উপস্থিত থাকবেন।
৩. কোন কাজ দেয়া হলে নির্ধারিত সময়ের আগে কাজ সম্পন্ন করবেন।
৪. নুন্যতম দুটি কলম, ডাইরি সঙ্গে রাখবেন ।
৫. ব্যাগ ব্যবহার করলে অবশ্যই হাত ব্যাগ ব্যবহার করবেন ।
৬. সর্বদা কাজ শেখার আগ্রহ দেখাবেন।
৭. সবার সঙ্গে ভালো ব্যবহার ও সখ্যতা বজায় রাখবেন। সবার মোবাইল নম্বর সংরক্ষণ করবেন । নিয়মিত সালাম, শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।
৮. যার সঙ্গে ভালো সম্পর্ক রাখলে কাজ শিখতে পারবেন বা ইন্টার্নি পরবর্তীতে চাকুরি পেতে পারেন, তাদের সঙ্গে সর্বদা যোগাযোগ রাখবেন, এমনকি ইন্টার্নির পরেও। নিয়মিত শুভেচ্ছা জ্ঞাপনের মত সৌজন্যমুলক প্রতিক্রিয়া দেখাবেন।
৯. ইন্টার্র্নির শেষে ইণ্টার্নির সার্টিফিকেট তোলার পর ঐ প্রতিষ্ঠানের সবাইকে নুন্যতম মিষ্টিমুখ করাবেন,আর উল্লেখযোগ্যদের লাঞ্চ অফার করবেন। এটা আপনাকে কাজ শেখানোর তাদের সন্মানীস্বরুপ একধরনের সামাজিকতা।

ইন্টার্নিতে কি করা যাবে নাঃ
১. ভুলেও জিন্স বা উদ্ভট বা প্লেবয় জাতীয় পোশাক পড়বেন না, হাতে লকেট, চুড়ি ইত্যাদি পরবেন না। চুল বড় বড় রাখবেন না।
২. ওখানে গিয়ে প্রতিষ্ঠানের ক্ষতি হয় এমন কাজ করবেন না ।
৩. নিজের পলিটেকনিককে কখনো বদনাম করবেন না কিংবা বদনাম হতে দেবেন না।
৪. ওভার স্মার্ট হবার চেষ্টা করবেন না।
৫. কখনো কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ করবেন না।
৬. প্রতিষ্ঠানের নিচু পদের বা ৪র্থ শ্রেনীর কর্মচারিদের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করবেন।
৭. কারো সঙ্গে বেশি ফ্রি বা মন খোলা হবেন না।

উপরোক্ত কথা গুলো মেনে চলবেন।কারণ, ইন্টার্নির মার্ক আপনার ব্যবহার, কাজ শেখার স্পৃহা সহ সব কিছুর উপর নির্ভর করছে। এমনকি আপনার চাকরিও। ভালো কাজ করলে, ভালো ব্যবহার করলে আপনাকে তারা ওই কোম্পানিতেই চাকরির সুযোগ করে দিতে পারে।

Author

S.M. Fazla Rabbi

S.M. Fazla Rabbi

Find me on:

Leave a Reply

Your email address will not be published. aria-required='true'

 

Copyright © 2015 DiplomaZone.net